টেক বাংলা আইটি https://www.techbanglait.com/2021/08/What-Should-I-Do-Before-Sending-In-My-Phone-For-Repair.html

মোবাইল রিপেয়ারিং করার পূর্বে যা করণীয়

মোবাইল রিপেয়ারিং করতে দেওয়ার আগে করণীয় — আমাদের মোবাইল ফোন রিপেয়ারিং করার জন্য আমরা মূলত দুইটি জায়গা থেকে মোবাইল ফোন রিপেয়ার করে থাকি। মোবাইল ফোন রিয়েপারিং করার জন্য হয়তোবা আমরা কোনো কাস্টমার কেয়ার কিংবা কোনো মোবাইল মেকানিকের কাছে নিয়ে যাই। কিন্তু ফোন রিপেয়ার করার পূর্বে আমাদের যে কিছু করণীয় আছে সে বিষয় নিয়ে আমরা অনেকেই আছি যে অবগত না! আজকের এই আর্টিকেলে আমরা মোবাইল রিপেয়ারিং করার পূর্বে যা করণীয় সেই বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

Mobile Repairing করতে দেয়ার পূর্বে আমাদের যেসকল বিষয়ে লক্ষ্য রাখা উচিত সেসকল বিষয় সমূহ নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। প্রত্যেক ব্যক্তির প্রাইভেসির জন্যে এই বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ তাই মনোযোগ সহকারে এই মোবাইল রিপেয়ারিং করার পূর্বে যা করণীয় পোস্টটি ভালো করে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিন।

মোবাইল রিপেয়ারিং করার পূর্বে যা করণীয়

কাস্টমার কেয়ার vs মেকানিক

আপনার মোবাইল ফোনটি যদি ওয়্যারেন্টির ডেটে থাকে তবে ফোনের যেকোনো কিছু নষ্ট হোক না কেন সর্বপ্রথম মোবাইল ফোনটি কাস্টমার কেয়ারে ঠিক করার জন্য নিয়ে যাবেন। যদি আপনার ফোনের ওয়্যারেন্টি ডেট না থাকে তবে ভালো কোনো মেকানিকের কাছে যাবেন। কেননা, আপনার মোবাইল ফোনের কি? কি কারনে ফোনের সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে কিভাবে আপনার ফোনটি রিপেয়ারিং করতে হবে তা কাস্টোমার কেয়ার এর দক্ষ কর্মীগণ ভালোভাবে জানে আপনার কাজটি সহজ ভাবে করে দিতে পারবে। কিন্তু যদি এই পদ্ধতি না থাকে তবে আপনাকে ভালো কোনো দোকানে অর্থাৎ ভালো মোবাইল সার্ভিসিং মেকানিক এর কাছে দিয়ে কাজ করে নিতে হবে।

সিম কার্ড এবং মেমরি কার্ড খুলে নিন

আপনার ফোনের মেমরি হচ্ছে একটি পার্সোনাল জিনিস তাই যখন মোবাইল ফোনটি রিপেয়ারিং করতে দিলে কয় এক দিন সময় দেরি করার প্রয়োজন হয় তবে মেমরি কার্ড খুলে রেখে দিবেন। মেমরি কার্ড হারিয়ে যাওয়া ব্যতীত হয়তোবা আপনার মেমরি কার্ডে থাকা আপনার বিভিন্ন ডকুমেন্ট এবং ছবি বা অন্যান্য প্রয়োজনীয় কিছু চুরি হতে পারে তাই নিজের সুরক্ষারর জন্য মেমরি কার্ড খুলে নেয়াটা উত্তম। সেই সঙ্গে আপনার সিম কার্ডটি মেরামতের দোকানে রেখে আসবেন না বর্তমান সময়ে নিজের সিম কার্ড অন্যজনের কাছে দেয়া মানে খাল কেটে কুমির ডেকে আনা।

ফোন মেমরি ব্যাকআপ এবং ফরম্যাট

আপনার মোবাইল ফোনটি যদি রিপেয়ারিং করতে কয়েক দিন সময় নেয় অর্থাৎ ফোনটি রেখে আসার প্রয়োজন হয় তবে অবশ্যই আপনি ফোন মেমরি ব্যাকআপ রেখে দিবেন।আর যদি আপনার মোবাইল ফোনে সফটওয়্যার দেয়ার প্রয়োজন হয় তবে সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইলের কোনো ডাটা আর থাকবে না সবগুলো মুছে যাবে। 

ফোন মেমরিতে ডিফল্ট লোকেশন দেয়া থাকে তাই ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি, ডাউনলোড দেয়ায় ফাইল অনেকে ফোন মেমরিতেই থেকে যায় তাই আপনার ছবি গুলো অবশ্যই মেমরিতে রেখে দিবেন। আর ফোনটি রিপেয়ারিং দেয়ার সময়ে ফোন মেমরি ফরম্যাট দিবেন যদি আপনার নিজের সুরক্ষা চান, কেননা হতে পারে আপনার ফটো বা অন্যান্য কোনো ডকুমেন্ট হাতিয়ে নিয়ে আপনাকে হয়রানির করতে পারে তাই এই বিষয়ে সাবধান থাকুন।

ফেসবুক লগ আউট করে রাখুন

বর্তমান সময়ে এমন অনেক মানুষ কম আছে যারা স্মার্টফোন ব্যবহার করে কিন্তু ফেসবুক অথবা অন্যান্য কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করেনা। প্রতিনিয়ত আমরা ফেসবুকে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে মেসেজ, ছবি শেয়ারিং, প্রেমিক-প্রেমিকাদের আলাপ আলোচনা কতো কিছুই না হয়। এখন আপনি একটু চিন্তা করুন তোহ এই অবস্থায় যদি কোনো অসৎ ব্যক্তির হাতে ফোনটি পড়ে যায়?

তবে আপনি ক্ষতির মুখে স্বাভাবিক ভাবেই পড়ে যাবেন এমন অনেক দেখেছি যে, মোবাইল ফোন রিপেয়ারিং করতে দিয়েছেন আর মেকানিকরা তাদের পার্সোনাল সব জিনিস হাতিয়ে নিয়েছে। একটি ফেসবুক একাউন্ট অন্য ব্যক্তির হাতে যাওয়া মানেই বর্তমানে সময়ে নিজের বিপদ নিজেই ডেকে আনা তাই এই বিষয়ে সাবধান থাকুন।

নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মোবাইল রিপেয়ার করুন

মোবাইল রিপেয়ার করার সময়ে অনেক মেকানিক আছে যারা ফোনের ভালো পার্টসগুলোকে খুলে খারাপ পার্টস গুলোকে লাগিয়ে দেয়। তাই যখন আপনি মোবাইল ফোন রিপেয়ার করতে দিবেন তখন আপনি স্বয়ং নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মোবাইল ফোনটি মেকানিকের থেকে রিপেয়ার করে নিবেন। অনেক সময়ে দেখা যায় যে, মোবাইল ফোনের পার্টস পাওয়া যায় নাহ বা মেকানিক আরও কাজ থাকে বলে মেকানিক একটা সময় বলে যে ১-২ দিন পর মোবাইলটি নিতে আসবেন। যদি আপনি এরকম পরিস্থিতিতে পড়েন তবে অবশ্যই উপরোক্ত কথাগুলো অনুসরণ করে চলা উচিত।

শেষ কথা

এখন হয়তোবা অনেকেই চিন্তা করছেন যে একটা মোবাইল ফোন ঠিক করার জন্য এতো কিছু অনুসরণ করবাে? এতো কিছুর মানে টা কি? আপনার যদি ধারণা এমন হয়ে থাকে তবে তা সম্পূর্ণ আপনার একান্ত ব্যাপার। হ্যাঁ মনে রাখবেন আপনার এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন কিংবা অন্য মোবাইল ফোন হোক না খুবি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস যদি কোনো অসাধু ব্যক্তির হাতে পারে তবে আপনার অনেক ভাবেই ক্ষতি হওয়ার আশংকা থাকে। 

একটি মেয়ে বা মহিলার মোবাইল ফোন রিপেয়ার করতে দেয়ার পূর্বে এ বিষয়ে খুবই গুরুত্ব দেয়া উচিত। কেননা চাইলে মেয়ের পার্সোনাল ছবিগুলো মেকানিক হাতিয়ে নিয়ে তাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করতে পারে! মেকানিক যে হয়রানি করবে ঠিক তাও নাহ। কিন্তু মনে রাখবেন সাবধানতার মার নেই তাই সব সময় সাবধানতা অবলম্বন করে কাজ করবেন।

ফেসবুক একাউন্ট, গুগল একাউন্ট সহ আরও অনেক ডকুমেনট আমাদের মোবাইল ফোনে রয়েছে যে গুলো আমাদেরকে অনেক প্রাইভেসিতে রাখা প্রয়োজন সেগুলো যদি কোনো ভাবে অসৎ ব্যক্তির হাতে পড়ে যায় তবে মারাত্মক কাহিনীর সৃষ্টি হতে পারে। যারা আমরা প্রযুক্তি প্রেমী এবং এই রিলেটেড বিভিন্ন মুভিগুলো দেখে থাকি তারা মোবাইল ফোন থেকে বিভিন্ন ডাটা চুরি করা অথবা ছবি নিয়ে বিভিন্ন হয়রানি মূলক ঘটনা দেখে থাকবেন। এই ব্যাপারটি শুধুমাত্র মুভির মাঝেই সীমাবন্ধ নহে আমাদের বাস্তব সমাজে এমন ধরনের ঘটনা ঘটে থাকে। এজন্য আপনি সাবধান থাকবেন আর যদি সাবধান না থাকেন তবে আপনার মান ইজ্জত সব শেষ😀।

আমি মনে করি, মোবাইল রিপেয়ারিং করতে দেওয়ার আগে করণীয় বা আমাদের যেসকল বিষয়গুলো করা উচিত সেই গুলো সঠিক সুন্দরভাবে বুঝতে ও জানতে পারছেন। এছাড়াও আপনার কোনো জিনিসটা মোবাইল ফোনে থাকলে সেটা ক্ষতি হওয়ার আশংকা থাকে সেই বিষয় নিয়ে বিবেচনা করবেন।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া