টেক বাংলা আইটি https://www.techbanglait.com/2021/09/How-to-remove-a-virus-from-an-Android-phone.html

মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায়

মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায় — কম্পিউটারের মতোই আপনার হাতে থাকা এন্ড্রয়েড স্মার্টফোনটিও কিন্ত ম্যালওয়্যারের শিকার হতে পারে। ম্যালওয়ার বা ভাইরাস আপনার সিস্টেমটিকে স্লো বা ধীরগতির করে দেয়। ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার সিস্টেমে এমন গ্লিটস তৈরি করে যা এমনকি আপনার স্মার্টফোন বা কম্পিউটার ব্যবহার করাটাকে অনেক বেশি কঠিন করে তোলে। আপনার হাতে থাকা গুরুত্বপূর্ণ স্মার্টফোন এবং অনলাইনের জগতে নিজেকে রক্ষা করার জন্য আপনাকে এই সিস্টেমটিকে দ্রুততার সাথে থামাতে হবে। 

মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার জন্য সর্বপ্রথম পদক্ষেপটি হচ্ছে এটি আপনার স্মার্টফোনের মধ্যে ভাইরাস সার্চ করা। আপনার হাতে থাকা প্রয়োজনীয় গুরুত্বপূর্ণ স্মার্টফোনটি বা মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায় সম্বন্ধে পদক্ষেপগুলো এখানে শিখুন। এরপরে আমরা আপনাকে ম্যালওয়্যার ডিলিট সরঞ্জামগুলোতে কিছু বিকল্প পদ্ধতি দেখাবো যা ব্যবহার করে আপনি নিজের স্মার্টফোনটি আবার সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারবেন। তো চলুন আর দেরি না করে জেনে নেই মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায় সম্পর্কেঃ

মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায়

সুনির্দিষ্ট সমাধান না পাওয়া পর্যন্ত মোবাইল বন্ধ করুন

আপনি নিশ্চিত হয়ে নিন যে, আপনার মোবাইল ফোনটি ম্যালওয়্যার দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে এরপর ফোনের পাওয়ার বাটনটি চেপে ধরে রাখুন এবং মোবাইল ফোনটি সম্পূর্ণ অফ করে নিন। যদি আপনি এই কাজটি করেন তাহলে ম্যালওয়্যারটিকে ক্ষতির কারন হতে বাধা দিতে পারেনা, তবে আপনার ফোনের সমস্যাটি আরো বেশি খারাপ হওয়া থেকে থামিয়ে দিতে পারে এবং নিকটস্থ নেটওয়ার্কগুলোতে অ্যাক্সেসের চলমান ম্যালওয়্যার প্রচেষ্টা অফ করতে পারে। ম্যালওয়্যার প্রচেষ্টা অফ করে দেওয়া আপনাকে চিন্তাভাবনা ও গবেষণার জন্যে সময় দেয়। 

আপনি যদি নির্দিষ্ট সংক্রমিত অ্যাপসটি সম্পর্কে জানেন যা আপনার মোবাইল ফোনের মধ্যে ম্যালওয়্যার নিয়ে চলে আসছে? আপনার সম্মতি ব্যাতীত এটি অন্যান্য কোনো ধরনের সফটওয়্যার ডাউনলোড করেছে সেটা আপনি জানেন? যদি সেটা না হয় তাহলে সমস্যাটি সঙ্কুচিত করার জন্যে অন্য কম্পিউটারে যান এবং আপনার লক্ষণগুলোকে দেখুন। যদি আপনি সমস্যার মূল খুঁজে না পান তাহলে আপনি এটিকে ডিলিট করতে পারবেন না।

আরও পড়ুনঃ অন্যের ইমু নাম্বার জানার উপায় | অন্যের ইমু নাম্বার দেখার উপায়

সেভ মুডে রাখুন

যখন আপনি আপনার নিজের মোবাইল ফোনটি চালু করেন এবং সমস্যাযুক্ত অ্যাপসটিকে আলাদা করতে শুরু করেন তবে প্রথমে সেভ মুডে সুইচ করুন। এই অপশনটি ম্যালওয়্যার দারা সংক্রামিত অ্যাপ্লিকেশনটিকে খুঁজে বের করতে পারে এবং ক্ষতির সীমাবদ্ধ করতে সাহায্য করবে। বেশিরভাগ এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন ডিভাইসের জন্য আপনার ডিভাইস চালু থাকা অবস্থাতে আপনি কয়েক সেকেন্ডের জন্য পাওয়ার বাটনটি ধরে রেখে সেভ মুডে সুইচ করতে পারেন। তারপর আলতো করে চাপ দিয়ে পাওয়ার অফ বিকল্প বাটনটি ধরে রেখে। 

এটি সেভ মুডে রিবুট করার বিকল্প সহ কয়েকটি পাওয়ার বিকল্প আনতে হবে। এই মুডটি সিলেক্ট করুন এবং আপনি চালিয়ে যাওয়ার পূর্বে আপনার মোবাইলফোনটি রিবুট হওয়ার জন্যে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। আপনি যদি কোনো সেভ মুড না খুঁজে পান, তাহলে কোনো ডিভাইস থেকে আপনার ডিভাইস ডিলিট করে ফেলার জন্যে পরিবর্তে এয়ার প্লেন মোড চালু করুন। আপনি সাধারণত এই অপশনটি আপনার ফোনের নোটিফিকেশন অপশনে এই ইয়ারপ্লেন মুড অপশনটি সন্ধান করতে পারেন।

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ আনইনস্টল করুন

মোবাইল ভাইরাস মুক্ত রাখার জন্য কেবলম আনইনস্টল করার পথটিকে বেছে নিন এবং আপনার এন্ড্রয়েড স্মার্টফোনটি থেকে প্রশ্নবোধক অ্যাপটিকে ডিলিট করে ফেলতে হবে। আপনার ফোনে অ্যাপের তালিকাটি পর্যালোচনা করা এবং অন্যান্য সন্দেহজনক ডাউনলোড করা ফাইলগুলোকে আনইনস্টল করাটাও ভালো ধারণা। যদি আপনি এই তালিকাতে পূর্বে কোনো অ্যাপ না দেখে থাকেন তাহলে আপনার ডিভাইসটিতে এটির কিছু অদ্ভুত জিনিস আছে বলে আপনি অবাক হয়ে যেতে পারেন।

ম্যালওয়ার সুরক্ষা অ্যাপ ডাউনলোড করুন 

একটি দুর্বল এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন কিন্ত সুরক্ষার দাবি রাখে। আপনার মোবাইল ফোন সুরক্ষা, ভাইরাসগুলোর জন্য স্ক্যান করতে এবং জাঙ্ক ফাইলগুলো এবং কোনো সম্ভাব্য সংক্রামিত সফটওয়্যার থেকে মুক্তি পেতে আপনি ডাউনলোড করতে পারেন এমন বেশ কয়েকটি সুরক্ষা অ্যাপ্লিকেশন আছে। আপনি আপনার ফোনের ভবিষ্যতের যেকোনো সমস্যার যত্ন নিতে সাহায্য করার জন্যে একটি এন্টিভাইরাস অ্যাপ্লিকেশান ডাউনলোড করুন। এক্ষেত্রে অনেকের পছন্দ আছেঃ গুগল প্লে স্টোর থেকে 360 এন্টিভাইরাস, অ্যাভাস্ট অ্যান্টিভাইরাস বা এভিজি অ্যান্টিভাইরাসের মতো সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেখুন।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া