টেক বাংলা আইটি https://www.techbanglait.com/2021/06/7-Useful-Tips-to-Protect-Your-USB-Flash-Drive-from-Viruses.html

পেনড্রাইভ ও কম্পিউটার ভাইরাস মুক্ত রাখার ৬টি উপায়

পেনড্রাইভ ও কম্পিউটার ভাইরাস মুক্ত রাখার উপায় - পেনড্রাইভ হচ্ছে একটি ইউএসবি ফ্লাশ মেমরী ডিভাইস যার সাহায্য বিভিন্ন ধরনের ডাটা এক কম্পিউটার থেকে অন্য একটি কম্পিউটারে মধ্যে নেয়ার জন্য ব্যাবহার করা হয়। পেনড্রাইভ আকারে ছোট হওয়ার কারনে খুব সহজে এটি পকেটে করে বহন করা যায়। এটার মাধ্যমে অনেক ডাটা আনা নেওয়া করা যায় যা মূলত এটির ধারণক্ষমতার উপরে নির্ভর করে। পেনড্রাইভ ব্যবহার করে ছবি, ভিডিও, অডিও, স্প্রেডশিট, ডকুমেন্টস অন্যান্য সকল ধরণের ফাইল কপি করা যায়।

পেনড্রাইভ ও কম্পিউটার ভাইরাস মুক্ত রাখার ৬টি উপায়

কিন্ত সমস্যা হচ্ছে প্রায় সকলেই আছেন যারা পেনড্রাইভে ভাইরাসের সমস্যায় সম্মুখীন হন। পেনড্রাইভের মধ্যে ভাইরাসে প্রবেশ করার প্রধান কারণ হচ্ছে এই সকল ভাইরাস ইন্টারনেট থেকে খুব দ্রুত ছড়ায় এবং আপডেট হতে থাকে। অথচ মার্কেটে কিনতে পাওয়া এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার সে তুলনায় আপডেট না হওয়ার কারণে ভাইরাস গুলোকে ধরার ক্ষমতা রাখে না। আমারা সামান্য সচেতন হলেই এই ধরনের ভাইরাসের হাত থেকে পেনড্রাইভকে ভাইরাস মুক্ত রাখতে পারি।

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি বিস্তারিত আলোচনা করবো কিভাবে আপনার পেনড্রাইভকে ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখবেন এবং কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপে ভাইরাস বিস্তার করা প্রতিরোধ করবেন। চলুন জেনে নেই কিভাবে এই সকল ভাইরাস থেকে পেনড্রাইভ নিরাপদ রাখতে পারি।

এক্সপ্লোর এর মাধ্যমে পেনড্রাইভ এ প্রবেশ

আমারা সাধারণত মাই কম্পিউটারে গিয়ে পেনড্রাইভ আইকনে ডাবল ক্লিক করার পর সেটি ওপেন করি। আর এটাই হচ্ছে পেনড্রাইভ থেকে কম্পিউটারে মধ্যে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সঠিক সময়। তাই ভাইরাস থেকে পেনড্রাইভকে বাঁচতে নীচের পদ্ধতি গুলাে অনুসরণ করে পেনড্রাইভ ওপেন করবেন:

প্রথমে “My Computer” প্রবেশ করে রাইট বাটন ক্লিক করে “Explorer” ক্লিক করুন কিংবা কীবোর্ড থেকে “Windows Key + E” চাপুন। সেখানে থেকে আপনার পেনড্রাইভের আইকনে ক্লিক করুন। এখানে ডান পাশের উইন্ডোতে আপনার পেনড্রাইভের কনটেন্ট দেখতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ এন্ড্রয়েড মোবাইল টিপস এন্ড ট্রিকস

ডিসেবল অটোপ্লে/অটোরান ফাংশান

  • আপনার পেনড্রাইভের অটো-প্লে/অটোরান ফাংশনটি ডিজেবল করে দিন।

  • কন্ট্রোল প্যানেলের ফাইল থেকে এক্সপ্লোরার অপশনে গিয়ে ‘Hide Extension for known file types’ এবং ‘Hide Protected OS files’ আনচেক করুন। তারপর অ্যাপ্লাই ও ওকে বাটনে ক্লিক করুন এবং ফোল্ডারটি বন্ধ করুন।
  • তারপর ডেক্সটপে আসার পরে উইন্ডো স্টার্ট বাটনে ক্লিক করুন অ Search for files & folders অপশন সিলেক্ট করে নিন। সার্চ ডায়লগবক্স আসার পর সেখানে ”All Files & Folders’ ক্লিক করুন। তারপর মোর অ্যাডভান্সড অপশনে গিয়ে ‘সার্চ হিডেন ফাইলস এন্ড ফোল্ডার’ সিলেক্ট করুন। এখন আগে যান এবং লুকইন অপশনে গিয়ে পেন ড্রাইভ সিলেক্ট করুন যেমন E- অথবা G। এখন যদি আপনি কোনো অপরিচিত .Exe ফাইল দেখেন তাহলে সেটাকে মুছে ফেলুন।

ভাইরাস ডিলিট করন

কম্পিউটার এর ইউএসবি পোর্টে পেন ড্রাইভ লাগালে অটোরান উইন্ডো চলে আসবে। এটাকে এড়িয়ে যাওয়ার জন্য ক্যানসেল বাটনে ক্লিক করুন।

তারপর স্টার্ট অপশনে গিয়ে রান এখানে যান, cmd টাইপ করুন কমান্ড প্রম্প উইন্ডো ওপেন করার জন্য।

তারপর মাই কম্পিউটারে যাওয়ার পরে পেনড্রাইভটির ড্রাইভ লেটার চেক করে নিন যদি KingstonI: লেখা থেকে থাকে তাহলে ড্রাইভ হবে I:।

কমান্ড উইন্ডোতে লিখুন I: তারপরে এন্টার চাপুন।

এরপর dir/w/o/a/p লিখে এন্টার চাপুন।

তারপর আপনি পেনড্রাইভের ফাইল তালিকা দেখতে পারবেন। নীচের ফাইলগুলি আছে কি-না লক্ষ্য করুন-

১. Autorun.inf

২. New Folder.exe

৩. Bha.vbs

৪. Iexplore.vbs

৫. Info.exe

৬. New_Folder.exe

৭. Ravmon.exe

৮. RVHost.exe অথবা অন্য কোন ফাইল .exe এক্সটেনশনের.

যদি এগুলোর মধ্যে কোনটা পেয়ে যান তাহলে attrib -h -r -s -a . কমান্ডটি লিখে ইন্টার প্রেস করুন।

তারপর প্রতিটা ফাইল মুছে ফেলুন ডিলিট কমান্ড ব্যাবহার করে- del filename

এইবার এন্টিভাইরাস ব্যবহার করে পেনড্রাইভটি স্ক্যান করে নিন।

আরও পড়ুনঃ রাউটার কেনার আগে যে ৪টি বিষয় মাথায় রাখবেন

পেনড্রাইভ এর ড্রাইভ লেটার টাইপ করে প্রবেশ

সবথেকে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে অ্যাড্রেসবারে পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার লিখে প্রবেশ করা। সিস্টেমটা হচ্ছে ড্রাইভ লেটার + : টাইপ করে ইন্টার চাপা যেমন পেনড্রাইভ এর লেটার যদি H হয়ে থাকে তাহলে অ্যাড্রেসবারে H: টাইপ করে ইন্টার চাপতে হবে।

ফাইল ফরমেট পরিবর্তন করুন

প্রায় সকল পেনড্রাইভ এর ফাইল ফরম্যাট ডিফল্টভাবে Fat32 ফরমেটে থাকে। Fat32 ফরমেটটি ভালো আপনি যখন পেনড্রাইভটি বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমে যেমন- লিনাক্স, উিইন্ডোজ ও ম্যাক ব্যাবহার করেন। কিন্তু যদি সাধারনত শুধুমাত্র উইন্ডোজে ব্যাবহার করেন তাহলে NTFS ফরমেটটি ব্যাবহার করতে পারেন। এইক্ষেত্রে একটু সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে, আপনার পেনড্রাইভ ২ জিবি কম ধারণক্ষমতার হলে NTFS ফরমেট ব্যাবহার না করাই ভালো কারণ তা পারফর্মেন্স কমিয়ে দেবে। ফরমেট পরিবর্তন করার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:

  • কম্পিউটারের মধ্যে পেনড্রাইভ প্রবেশ করে Device Manager অপশনে যান।
  • Disk Drives মধ্যে USB drive এর নামের উপরে মাউসের ডান বাটনে ক্লিক করে Properties এ যান।
  • সেখানে Policies Tab থেকে Better Performance অপশন সিলেক্ট করুন।
  • এবার আপনার কম্পিউটারে গিয়ে ফাইল সিস্টেম NTFS সিলেক্টেড থাকা অবস্থায় পেনড্রইভটি ফরমেট করুন।

সিকিউরিটি পারমিশন পরিবর্তন

আপনার পেনড্রাইভের ডাটা রিড/রাইট পারমিশন পরিবর্তনের মাধমেও নিরাপদ করতে পারেন। সেজন্য যা করতে হবে:

  • ড্রাইভের উপরে রাইট বাটনে ক্লিক করে Properties এর Security ট্যাব থেকে Everyone সিলেক্ট অবস্থায় পারমিশন Read Only করুন।
  • তারপর Write নামে একটি ফোল্ডার তৈরি করে নিন যার পারমিশন দিন রিড/রাইট read/write। এখন আপনি যখনই কোনো পেনড্রাইভ কম্পিউটারে প্রবেশ করবেন এবং তাতে কোনো ভাইরাস থাকলে তা আপনার কম্পিউটারের কোনো ফাইল ইফেক্ট করতে পারবেনা। আপনার সব ডাটা write নামের ফোল্ডারে সংরক্ষন করবেন।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া